05 December, 2021 (Sunday)
শিরোনাম

খাবারে রুচি বাড়ানো কিছু পদ্ধতি

প্রকাশিতঃ 17-06-2021



নিজস্ব প্রতিবেদক : শরীরের সকল কার্যক্ষমতার উৎস খাবার। খাবার না খেতে পারলে শরীর মন কোনটায় ভালো থাকে না। তবে বিভিন্ন কারনে কিছু কিছু সময় কোন খাবারেই রুচি আসেনা। হতে পারে তা মানসিক অস্থিরতা, বিষণ্ণতা, জন্ডিস, জ্বর, পাকস্থলীর বা অন্ত্রের সমস্যা ইত্যাদি কারণে। বিশেষ করে এই সময় করোনা এবং ঋতু পরিবর্তনের কারণে অনেকেরই জ্বর আসছে। যার ফলে ধীরে ধীরে খাবারের প্রতি অনীহা তৈরী হচ্ছে। কিন্তু রুচি ফিরিয়ে আনাটা সুস্থ থাকার জন্য অত্যন্ত জরুরী। তাই চলুন দেখে নেওয়া যাক খাবারে রুচি ফেরাতে করণীয় কি-

১. দিনের প্রধান খাবারকে ভাগ করুন ৬ ভাগে
 
আমাদের দেশে সাধারণত তিনটি প্রধান সময়ে মানুষ খাদ্য গ্রহণ করে। সকালে, দুপুরে এবং রাতে। এই খাবারের পরিমাণ কিছুটা বেশি হয়ে থাকে যা স্বল্প রুচির ব্যক্তির জন্য গ্রহণ করাটা কষ্টকর হয়ে দাঁড়ায়। তাই দিনের খাবারকে ছোট ছোট ৬ টি ভাগে ভাগ করে নিন। এই পদ্ধতিতে খেলে নিজেকে ভারী মনে হবে না, এছাড়া ক্ষুধা বাড়বে। যাদের খাবারে একদমই রুচি নেই, তারা নিজেদের পছন্দের সময়ে খাদ্য গ্রহণ করতে পারেন।

২. আপনার পছন্দের খাবারগুলোই রাখুন দৈনিক খাদ্য তালিকায়
 
সাধারণত এদেশের মানুষ খুব একটা পছন্দের না হলেও বাসায় যা রান্না হয় তা ই খেয়ে নেয়। কিন্তু স্বল্প রুচির ব্যক্তিদের পক্ষে এ ব্যাপারটা বেশ কঠিন। তাই দৈনিক খাদ্য তালিকায় রাখুন আপনার পছন্দের খাবারগুলোই। তবে সে খাবারগুলো যদি ফ্যাট যুক্ত, তেলে ভাজা হয়ে থাকে তবে পরিমাণের দিকে সতর্ক দৃষ্টি রাখুন।

৩. খাবারে যুক্ত করুন ধনেপাতা, পুদিনা এবং বিভিন্ন মশলা

অনেক সময় খাবারের সুন্দর গন্ধই মানুষের রুচি বাড়িয়ে তোলে। তাই খাবার তৈরির সময় এতে এমন মশলা ব্যবহার করুন যা সুঘ্রাণ তৈরি করে এবং স্বাদ বাড়িয়ে তোলে। ধনে পাতা, পুদিনা এসবও খাবারের সুঘ্রাণ এবং স্বাদ বৃদ্ধিতে ভূমিকা রাখে। সেই সাথে বাড়িয়ে দেয় ক্ষুধা।

৪. আঁশযুক্ত খাবার কম গ্রহণ করুন

যদিও আমাদের সুস্বাস্থ্যের জন্য আঁশযুক্ত খাবার অপরিহার্য, কিন্ত খাবারে রুচি বৃদ্ধি করার জন্য কিছুদিন আঁশযুক্ত খাদ্য গ্রহণ বন্ধ রাখা যেতে পারে। আঁশযুক্ত খাবার হজম হতে কিছুটা বেশি সময় লাগে যা আমাদের ক্ষুধাবোধকে দমিয়ে রাখে। ভাত, আলু, ইত্যাদি খাবারের পরিবর্তে আটার রুটি প্রধান খাবার হিসেবে খাওয়া যেতে পারে। তবে দীর্ঘদিন এ অবস্থায় থাকা উচিত নয়, কারণ শরীর অন্যান্য চাহিদা পূরণে আঁশযুক্ত খাবারের কোন বিকল্প নেই।

৫. খাবার সময়গুলোকে আকর্ষণীয় করে তুলুন

খাবারের রুচি বাড়াতে পরিবেশ খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। তাই যতটা সম্ভব আকর্ষণীয় করে তুলুন খাওয়ার সময়টা। জ্বালিয়ে নিতে পারেন মোমবাতি, টিভিতে দেখতে পারেন প্রিয় কোন অনুষ্ঠান যা আপনার রুচি বাড়িয়ে তুলবে। খাবার টেবিলে অস্বস্তিকর আলোচনা সর্বাবস্থায় পরিহার করুন।

৬. পরিবার বা বন্ধুদের সাথে খাওয়ার অভ্যাস করুন

একা খাওয়ার চেয়ে পরিবারের সবাই বা বন্ধুদের সাথে খাওয়া অনেক বেশি আকর্ষণীয়। খাওয়ার সময় তাদের সাথে গল্প করলে আপনার খাওয়ার মূহুর্ত হয়ে উঠবে আনন্দময়, ফলে খুব স্বাভাবিকভাবে বেড়ে যাবে আপনার রুচিও।

৭. খাওয়ার সময় বড় প্লেট ব্যবহার করুন

বড় প্লেটে স্বাভাবিক পরিমাণ খাবার খেলেও আপনার মনে হবে পরিমাণের চেয়ে কম খেয়েছেন। স্বাভাবিকভাবেই আরেকটু বেশি খাওয়ার ইচ্ছা জাগবে। ছোট প্লেটের তুলনায় বড় প্লেট বেশি খাবার খেতে মানুষকে উৎসাহিত করে। তাই যাদের খাবারে রুচি কম, তারা বড় প্লেটে খাবার গ্রহণ করুন।




Social Media

মন্তব্য করুন:





সর্বশেষ খবর





সর্বাধিক পঠিত



এই বিভাগের আরও খবর

আরও সংবাদ