29 July, 2021 (Thursday)
শিরোনাম

করোনায় আর্থিক সংকটে গহনা বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছেন ভারতীয় নারীরা

প্রকাশিতঃ 13-07-2021



অনলাইন ডেস্ক : ভারতে করোনা মহামারীতে দরিদ্র মানুষের যেন নাভিশ্বাস উঠার জোগাড় হয়েছে। যার যেটুকও শেষ সম্বল ছিলো তাও শেষ হয়ে যাওয়ায় অনেক তাদের জমানো সোনার গহনাও বিক্রি করে দিতে বাধ্য হচ্ছেন। দেশটি লকডাউনের কবলে পড়া পঙ্গু অর্থনীতির কারণে ফের চরম দারিদ্র্যের মুখে পড়তে যাচ্ছেন। ২০ কোটি মানুষের দৈনিক আয় ৫ ডলারের নিচে নেমে গেছে।

বিশেষ করে গ্রামীণ ভারতে এই দুর্দশা সবচেয়ে প্রকট। তাদের আয়ের পথ রুদ্ধ এবং ক্রয়ক্ষমতাও নিঃশেষ হয়ে গেছে। আশে পাশে ব্যাংক কম থাকায় তারা খুবই কম দামে নিজেদের গহনা বিক্রি করে নগদ টাকা সংগ্রহের চেষ্টা করছেন।

লন্ডনভিত্তিক মেটালস ফোকাস লিমিটেড-এর কন্সালট্যান্ট চিরাগ শেঠ বলেন,করোনার দ্বিতীয় তরঙ্গের কারণে আর্থিক সঙ্কটের আশঙ্কা অনেক বেশি। গ্রাহকরা তাদের সোনার গহনা বন্ধক দিয়ে ও বিক্রি করে নগদ টাকা সংগ্রহ করতে বাধ্য হচ্ছেন। সংগৃহীত পুরনো সোনার পরিমাণ ২১৫ টন পর্যন্ত হতে পারে। এসব সোনাকে গলিয়ে নতুন রূপে পরিবেশন করা হবে।

শেঠ আরো বলেন, গত বছর মহামারিতে আপনি আর্থিক সঙ্কটে পড়ে সোনা বন্ধক দিয়ে সাংসারিক খরচ সামলেছেন। মহামারি কেটে গেলে চলতি বছর আপনি সেগুলো পুনরুদ্ধারের চেষ্টা করতে পারতেন।

পল ফার্নান্দেজ নামের একজন ৫০ বছর বয়সী ওয়েটার বলেন, গত বছর লকডাউনে চাকরি চলে যাওয়ার পর ছেলেমেয়েদের লেখাপড়ার খরচ মেটানোর জন্যে সোনা বন্ধক দিয়ে নগদ টাকা নিয়েছিলাম। কিন্তু চলতি বছর আরেকটি চাকরি পাওযার চেষ্টায় এবং হোম বিজনেসের সন্ধানে সোনাগুলো বিক্রি করে দিয়েছি। কারণ সোনাগুলো ফের ছাড়িয়ে আনার ক্ষমতা আমার নেই এবং এগুলোর সুদও পরিশোধ করতে পারছিলাম না।




Social Media

মন্তব্য করুন:





সর্বশেষ খবর





সর্বাধিক পঠিত



এই বিভাগের আরও খবর

আরও সংবাদ