29 July, 2021 (Thursday)
শিরোনাম

২৪ বছর পর ছেলেকে খুঁজে পেলেন বাবা

প্রকাশিতঃ 18-07-2021



অনলাইন ডেস্ক : ছোট থাকতে চুরি হয়েছিল ছেলে। এরপর কত জায়গাতেই না তাকে খুঁজেছেন বাবা। দীর্ঘ ২৪ বছর ধরে খোঁজার পর অবশেষে ছেলেকে খুঁজে পেয়েছেন। ঘটনাটি চীনের শ্যানডং প্রদেশের।  
 
মোটরবাইকে চড়ে দেশের এক প্রান্ত থেকে আরেক প্রান্ত। প্রায় পাঁচ লাখ কিলোমিটারেরও বেশি পথ ছুটে বেড়ানোর পর ২৪ বছর আগে চুরি হয়ে যাওয়া ছেলেকে পেয়েছেন অভাগা বাবা গুয়ো গানতাং। মানব পাচারকারীরা তার দুই বছর বয়সী ছেলেকে অপহরণ করেছিল প্রায় দুই যুগ আগে।
 
চীনের জননিরাপত্তা সংক্রান্ত মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, ডিএনএ পরীক্ষার মাধ্যমে পুলিশ গুয়ো গানতাং এর সন্তানকে চিহ্নিত করতে সক্ষম হয়। অপহরণের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে দুইজনকে গ্রেফতারও করা হয়েছে।
 
চায়না নিউজের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, একটি শিশু অপহরণ করার পরিকল্পনা করেছিল ওই যুগল। অর্থের বিনিময়ে শিশুটিকে বিক্রি করে দেয়াই ছিল তাদের উদ্দেশ্য। তারা গুয়ো গানতাং এর সন্তানকে বাড়ির বাইরে খেলতে দেখেন। তখন তাদের মধ্যে নারীটি ওই শিশুকে চুরি করে নিয়ে যায়। পরে তাকে দেশটির হেনান প্রদেশে বিক্রি করে দেয় অভিযুক্ত যুগল।
 
ছেলেকে খুঁজে পাওয়ার পর গুয়ো গানতাং বলেন, ‘এখন তো ছেলেকে পাওয়া গেছে, আমি খুব খুশি।’
 
গুয়ো গানতাং এর ছেলে অপহৃত হয় ১৯৯৭ সালে। এরপর সন্তানের খোঁজে পাগলপাড়া হয়ে মোটরসাইকেলে চড়ে পুরো দেশে ঘুরেছেন তিনি। যেখানেই ক্লু পেয়েছেন, সেখানেই ছুটে গেছেন। সন্তানের খোঁজে মোটরবাইক নিয়ে ২০টিরও বেশি প্রদেশে গিয়েছেন তিনি। মোটরসাইকেল নিয়ে পড়েছেন দুর্ঘটনায়। নষ্ট হয়েছে তার ১০টি মোটরসাইকেল। 
 
এক কথায় ছেলের খোঁজে অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন গুয়ো গানতাং। অসংখ্য রাত কাটিয়েছেন রাস্তায়। ভিক্ষা করেছেন অভাবে পড়ে। এমনকি গুয়ো গানতাং সারা জীবন যতো অর্থ সঞ্চয় করেছিলেন তার সবটাই তিনি সন্তানের খোঁজ করতে গিয়ে খরচ করে ফেলেছেন।
 
ছেলেকে খোঁজার জন্য এসব কর্মকাণ্ড তাকে বিখ্যাত করে দিয়েছে। তার সন্তানের নিখোঁজ হয়ে যাওয়া নিয়ে ২০১৫ সালে হংকং এ একটি বহুল আলোচিত চলচ্চিত্রও নির্মিত হয়েছিল।
 
চীনের একটি বড় সমস্যা শিশু অপহরণ। চীনে প্রতি বছর অসংখ্য শিশু অপহরণের ঘটনা ঘটে। ২০১৫ সালে এ বিষয়ে একটি জরিপে বলা হয়, চীনে প্রতি বছর প্রায় ২০,০০০ শিশু অপহৃত হয়।



Social Media

মন্তব্য করুন:





সর্বশেষ খবর





সর্বাধিক পঠিত



এই বিভাগের আরও খবর

আরও সংবাদ