25 September, 2021 (Saturday)
শিরোনাম

হাবিবই কি হচ্ছেন ঢাকার পরবর্তী কমিশনার?

প্রকাশিতঃ 14-09-2021



নিউজ ডেস্ক : ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলামের অবসরে যাচ্ছেন আগামী ৩০ অক্টোবর। অর্থাৎ দেড় মাসের কম সময়ে নতুন পুলিশ কমিশনার নিয়োগ দেয়া হবে। নতুন ডিএমপি কমিশনার কে হবে এ নিয়ে আলোচনা শুরু হয়েছে সরকারি মহলে। পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের পদস্থ কর্মকর্তাদের মধ্যেও  কথা হচ্ছে এই পদ নিয়ে। ইতোমধ্যে অতিরিক্ত আইজিপি পদমর্যাদার এই পদের জন্য চেষ্টা তদবির শুরু করেছেন পুলিশের অনেক কর্মকর্তা। তারা যোগাযোগ শুরু করেছেন সরকারের নীতি নির্ধারকদের সঙ্গে। পাশাপাশি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়েও যাতায়াত বাড়িয়েছেন তারা।

ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার নানাবিধ কারণে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তবে প্রধানমন্ত্রী চলতি মাসের ১৭ তারিখ জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে ১৮তম ভাষণ দিতে দেশের বাহিরে যাচ্ছেন। তিনি দেশে ফেরার আগে নতুন ডিএমপি কমিশনার বিষয়ে ‍চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়া হবে না বলে জানা গেছে। তবে পুলিশ কমিশনার হওয়ার দৌড়ে এখন পর্যন্ত চার জনের নাম শোনা যাচ্ছে। 

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও পুলিশ হেডকোয়ার্টার্স ​সূত্রে জানা যায়, পরবর্তী ডিএমপি কমিশনার হিসেবে অতিরিক্ত আইজিপি, এন্টি টেররিজম ইউনিট (এটিইউ) প্রধান কামরুল আহসান, পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের অতিরিক্ত আইজিপি (ক্রাইম এন্ড অপারেশনস) এম খুরশীদ হোসেন, পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের অতিরিক্ত আইজিপি (অর্থ) রুহুল আমীন ও ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি হাবিবুর রহমানের নাম আলোচনায় রয়েছে। এদের মধ্যে কামরুল আহসানের বাড়ি চাঁদপুর ও বাকি তিন জনের ​বাড়ি গোপালগঞ্জ জেলায়।

বিভিন্ন সূত্র মারফত জানা যায়, পরবর্তী ডিএমপিকমিশনার হিসেবে পুলিশ সদস্যদের মধ্যে আলোচনায় শীর্ষে রয়েছে হাবিবুর রহমানের নাম। ডিআইজি থেকে অতিরিক্ত আইজিপি পদে পদোন্নতি পেতে যাওয়া হাবিবুর রহমান ব্যতিক্রমী অনেক কাজ করে বাহিনীতে বেশ আলোচিত ও প্রশংসনীয়। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে এরইমধ্যে এনিয়ে ফাইল ওয়ার্ক শুরু হয়েছে। 

বিভিন্ন সূত্র ও পুলিশের অভ্যন্তরীণ জনপ্রিয়তা বিবেচনাসহ সব দিক বিবেচনা করে ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি হাবিবুর রহমান এগিয়ে আছে বলে জানা গেছে। তবে এ বিষয়ে  চুলচেরা বিশ্লেষণ করে এই পদে প্রার্থী চূড়ান্ত করবেন প্রধানমন্ত্রী। 

প্রসঙ্গত, ১৯৭৬ সালের ১ ফেব্রুয়ারি যাত্রা শুরু হওয়া ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের প্রথম কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন ই এ চৌধুরী। ১৯৭৬ সালের ২৪ ডিসেম্বর পর্যন্ত তিনি এ পদে ছিলেন। এরপর পর্যায়ক্রমে ডিএমপির কমিশনার ছিলেন- এএমএম আমিনুর রহমান, আব্দুর রকীব খন্দকার, মুহাম্মদ হাবিবুর রহমান, এম আজিজুল হক, এএইচএমবি জামান, এএমএম নসরুল্লাহ খান, মোহাম্মদ সালাম, এম এনামুল হক, গোলাম মোরশেদ, এএসএম শাহজাহান, আশরাফুল হুদা, মির্জা রকিবুল হুদা, এএন হুসেইন, একে আল মামুন, এএফএম মাহমুদ আল-ফরিদ, একেএম শামসুদ্দিন, মতিউর রহমান, কুতুবুর রহমান, আনোয়ারুল ইকবাল, আব্দুল কাইয়ুম, এসএম মিজানুর রহমান, নাইম আহমেদ, এবিএম বজলুর রহমান, একেএম শহীদুল হক, বেনজীর আহমেদ ও আছাদুজ্জামান মিয়া। এরপর মোহা. শফিকুল ইসলাম ২০১৯ সালের ১৪ সেপ্টেম্বর ডিএমপি কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব নেন। তার বাড়ি চুয়াডাঙ্গা জেলার আলমডাঙ্গা থানার নওদাবন্ড বিল দোয়ারপাড়া গ্রামে। তিনি চট্রগ্রামের অতিরিক্তি পুলিশ কমিশনার এবং পরবর্তীতে পুলিশ কমিশনার, চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি এবং ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ২০১৭ সালের ১৯ সেপ্টেম্বর তিনি পদন্নোতি প্রাপ্ত হয়ে অ্যাডিশনাল আইজিপি হিসেবে ঢাকায় এন্টি টেররিজম ইউনিটে যোগদান করেন। ২০১৮ সালের ২০ নভেম্বর অ্যাডিশনাল আইজিপি হিসাবে পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সে এবং ২০১৯ সালের ১৬ মে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) প্রধান হিসেবে যোগদান করেন।




Social Media

মন্তব্য করুন:





সর্বশেষ খবর





সর্বাধিক পঠিত



এই বিভাগের আরও খবর

আরও সংবাদ